Choose Language

Bengali Englinsh

কম্পিউটার সম্পর্কে


কিবোর্ডের পরিচিতি এবং এর ব্যবহার

কিবোর্ডের পরিচিতি এবং এর ব্যবহার

কম্পিউটার ব্যবহার করার জন্য আপনাকে কিবোর্ড পরিচিতি এবং এর ব্যবহার সম্পর্কে সুস্পষ্টভাবে জানতে হবে । কারন একজন ব্যবহারকারী যদি কীবোর্ড সম্পর্কে না জানে তাহলে কম্পিউটার ব্যবহার করা করতে পারবে কিন্তু দ্রুত কাজ করতে পারবে না। বিভিন্ন প্রোগ্রামে কিবোর্ডগুলো বিভিন্নভাবে কাজ করে । কম্পিউটারে আমরা যখন কোন কাজ করি তখন তার জন্য ইনপুট দিতে হয় এবং ইনপুট দেওয়ার জন্য আমরা বেশি ব্যবহার করে থাকি কিবোর্ড । কিবোর্ড এর মাধ্যমে কিভাবে ইনপুট দিতে হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো ।

কম্পিউটারে বিভিন্ন ধরনের ইনপুট ডিভাইস রয়েছে এর মধ্য উল্লেখযগ্যো হলো কিবোর্ড । কম্পিউটারের অধিকাংশ তথ্য এবং নির্দেশ দেওয়ার কাজে আমরা কিবোর্ড ব্যবহার করে থাকি । প্রোগ্রাম তৈরির কাজের জন্য প্রায় সবাটাই করা হয় কীবোর্ড ব্যবহার করে। কিবোর্ড বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে তবে ১০৪টি কীযুক্ত কীবোর্ড বেশি ব্যবহার করা হয় । পূর্বের কীবোর্ড গুলোতে কী সংখ্যা ছিল ৯৯/১০০ টি । তবে বর্তমানে ১০৪টি কীযুক্ত কীবোর্ড পাওয়া যায় ।

কীবোর্ডে দিয়ে লেখালেখি করার পাশাপাশি আরো অনেক ধরনের কাজ করা হয়ে থাকে । কাজের ধরন আনুযায়ী কম্পিউটারের কীবোর্ডের কী গুলোকে ছয় ভাগে বিভক্ত করা হয় ।

1

ফাংশন কী

ফাংশন কী :- কীবোর্ডের একেবারে উপরের সারিতে বামদিকের ১২টি (F1-F12 ) ফাংশন কী নামে পরিচিত । যাইহোক, এখানে 12 টি ফাংশন কী রয়েছে, যার প্রত্যেকটি বিভিন্ন প্রোগ্রামে ব্যবহৃত হয় । বিশেষ করে F1 টি Help কী হিসাবে ব্যবহার করা হয় ।

2

টাইপিং কী

টাইপিং কী :- কম্পিউটারে আমরা কীবোর্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের ইনপুট দিয়ে থাকি এর জন্য টাইপিং করার প্রয়োজন হয় । আর টাইপিং করার কাজের জন্য টাইপিং কী গুলো সম্পর্কে সকলের জানা উচিৎ । টাইপিং কীগুলো হলো A থেকে z এবং ফাংশন কী এর নীচের 1 থেকে 0, -, + পর্যন্ত এগুলো টাইপিং কী বলা হয়ে থাকে ।

3

টেক্স কী

টেক্স কী :- কীবোর্ডের মাঝের আংশে এ কী গুলোর অবস্হিত । এ কী গুলোর এক একটি একেক কাজে ব্যবহার করা হয় । আপনি যদি মাইক্রসফট ওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকেন এবং সেই ওয়ার্ড যে ফাইলটি ওপেন করেছেন । তার মধ্য অনেক পেজ রয়েছে সেগুলোকে আপনি যদি এক পেজ থেকে অন্য পেজে যেতে চান । তাহলে (Page Down) একটি ক্লিক করলে একটি পেজ নিচে চলে যাবে । আরার একটি পেজ উপরে যেতে চাইলে (Page Up) এ একটি ক্লিক করলে একটি পেজ উপরে চলে যাবে । আবার কোন একটি ফাইল, ফোল্ডার, অ্যাপলিকেশন, ডিলেট করতে চাইল সেই ফাইল, ফোল্ডার, অ্যাপলিকেশন, সিলেক্ট থাকা অবস্থায় যদি (Delete ) এ ক্লিক করার মাধ্যমে ডিলেট করা য়ায় ।

4

কারসর মুভমেন্ট কী

কারসর মুভমেন্ট কী :- কারসর মুভমেন্ট কী গুলো টেক্স কী এর নিচের আংশে রয়েছে এ কীগুলো অবস্থিত যা দিয়ে কারসর মুভমেন্ট করা হয় । আপনি যদি মাইক্রসফট ওয়ার্ড এ কাজ করেন তাহলে কোন কিছু লেখার সময় একটি কারসর থাকে যা টাইপ কারার পর এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সরে যায় । এই করসরটি সরানোর জন্য করসর মুভমেন্ট কী গুলোকে ব্যবহার করা হয় । এখানে মোট চারটি কি রয়েছে । যা দিয়ে উপন থেকে নিচে এবং ডান থেকে বামে কারসর সরানো হয় । এছাড়াও আরো অনেক সময় অনেক কাজে ব্যবহার করা হয় ।

5

নিউমেরিক কী

নিউমেরিক কী :- কিবোর্ডর ডান অংশে ক্যালকুলেটরের মতো ০ থেকে ৯ পর্যন্ত এবং যোগ, বিয়োগ, গুন, ভাগ ইত্যাদি কী গুলোকে নিউমেরিক কী বলা হয় । এ কী গুলোকে কন্টল করার জন্য একটি ( Num Lock ) কী রয়েছে যা এ কী গুলোকে নিয়ন্ত্রন করার কাজে ব্যবহার করা হয় । একি প্রেস করলে আপনি এর আন্ডারে যতোগুলো কী রয়েছে তা আর কাজ করবে না । আবার এই কী প্রেস করলে পুনরায় সবগুলো দ্ধারা কাজ করা সম্ভব ।

6

বিশেষ কী

বিশেষ কী :- Windows কী Windows Enhanced Keyboard গুলোতে Windows Logo অঙ্কিত দেখতে পাওয়া যায় । এই কী চাপলে Start menu তে যে আপশন গুলো রয়েছে তা দেখতে পাওয়া যায় । তবে যে কীবোর্ড Windows logo নেই সেই কী বোর্ডে (Ctrl + Esc ) প্রেস করলে Start menu এর সকল কিছু দেখতে পাওয়া যায় । Escape সংক্ষেপে Esc Key বলা হয় । এ কী টি একেক প্রগ্রামে একেক ধরনের হয়ে থাকে । সাধারনত এটি কোন একটি কাজের নির্দেশ বাতিল করার কাজে ব্যবহার করা হয় ।

এছাড়াও কী-বোর্ডের আরো অনেক ধরনের কী রয়েছে যেগুলো দিয়ে আরো অনেক ধরনের কাজে ব্যবহার করা হয় ।

Tab Key : - কার্সর দ্রুত এক স্থান থেকে অন্য স্তানে সরানোর জন্য ব্যবহার করা হয় । এই কী দিয়ে আমরা খুব সহজে আমাদের কম্পিউটারে চলমান প্রোগ্রাম, ফাইল, ফোল্ডার একত্রে দেখতে ব্যবহার করা হয় । এই কমান্ডটি কার্য়কারি করার জন্য alt + Tab একসাথে চাপলে কম্পিউটারে সকল চলমান প্রোগ্রাম, ফাইল, ফোল্ডার ইত্যাদি দেখতে পারবেন । আপনি যদি অন্য আরেকটিতে যেতে চান Alt কী প্রেস আবস্থায় TAB প্রেস করতে হবে ।

Caps Lock Key : - সাধরণভাবে আমরা যখন কম্পিউটারে কোন কিছু লিখতে চাই তখন সেই লেখাটি ছোট এবং বড় অক্ষর করার কাজে Caps Lock Key টি প্রয়োজন হয় । একাধারে কোন ইংরেজী অক্ষনকে ছোট এবং বড় করার কাজে Caps Lock Key একবার চাপলে যা কিছু লেখা হবে তা সবই বড় হাতের অক্ষর হতে থাকে । আবার লেখাকে ছোট হাতের অক্ষর করতে চাইলে Caps Lock Key প্রেস করলে ছোট অক্ষর হতে থাকবে । Caps Lock Key প্রেস করা ছাড়া অক্ষর গুলোকে বড় করা সম্ভব । এর জন্য আপনাকে Shift Key প্রেস করে রেখেদিতে হবে এবং কোন ইংরেজী অক্ষর লেখা শুরু করলে সেগুলো বড় অক্ষর হতে থাকবে । Shift Key না প্রেস করে রাখেন তাহলে আবার পুনরায় ছোট অক্ষর হতে থাকবে ।

Ctrl, Alt, Shift key :- এগুলো সবই Keyboard এর অন্য কোন key এর সাথে যুক্ত হয়ে বিশেষ ধরনের নির্দেশ প্রয়োগ করে । মনে করুন, আপনি কোন ফোল্ডার, ফাইল, টেক্স ইত্যাদি কপি করতে চাচ্ছেন তাহতে (Ctrl + C ) প্রেস করার মাধ্যমে কপি করা সম্ভব হবে । আবার কোন ফোল্ডার, ফাইল, টেক্স ইত্যাদি মুভ করতে চাচ্ছেন তাহতে (Ctrl + X ) প্রেস করার মাধ্যমে মুভ করা সম্ভব হবে । এছাড়াও আরও অনেক কাজে ব্যবহার করা হয় ।



উক্ত বিষয়ের উপর আপনার যদি কোন মতামত বা পরামর্শ থাকে আপনি আমাদেরকে অবশ্যই জানাবে এর জন্য আপনি Contuct US পেজটি ফলো করুন । ধন্যবাদ

অনুগ্রহ করে শিয়ার করুন

সর্বশেষ টিউটোরিয়াল শিখুন





জনপ্রিয় টিউটোরিয়াল শিখুন





Hamidur Rahman Repon

হামিদুর রহমান রিপন

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু , আমি একজন অ্যান্ড্রয়েড সফটওয্যার ডেভলপার পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছে যারা কম্পিউটার ও প্রোগ্রাম সম্পর্কে শিখতে আগ্রহী । আমারা তাদেরকে খুব সহজে এবং গভীর ভাবে শিখতে সাহায্য করছি । আমরা ভাল কিছু করার চেষ্টা করছি । আমি আশা করি এই ওয়েব সাইট onlineashikhi.com আাপনাদেরকে কম্পিউটার ও প্রোগ্রাম সম্পর্কে শিখতে সাহায্য করবে । ধন্যবাদ !!!

আগামী টিউটোরিয়াল শিখুন

খুবই দ্রুততার সাথে এই সমস্ত বিষয়গুলো ওযেব সাইটে নিয়ে আসা হবে বর্তমানে এই সমস্ত বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করা হচ্ছে । ...

onlineashikhi.com সেবা সূমহ

onlineashikhi.com ভাল মানের সেবা দিযে থাকে। বিস্তারিত জানতে মেইল করুণ onlineashikhi@gmail.com পেয়ে যাবেন আমাদের সকল সেবা সূমহ । আমি মনে করি, এটি আপনাকে কম্পিউটার ও প্রগ্রাম সম্পর্কে শিখতে অনেক সাহায্য করবে ।

জনপ্রিয় টিউটোরিয়াল পেতে লাইক / সাবস্ক্রাইব করুণ